• ১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ৭ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

সুনামগঞ্জ জেলায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষ্যে পুলিশের ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ

bilatbanglanews.com
প্রকাশিত মে ২০, ২০২৪
সুনামগঞ্জ জেলায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষ্যে পুলিশের ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:
আগামীকাল ২১ মে সুনামগঞ্জ জেলার বিশ্বম্ভরপুর, জামালগঞ্জ, তাহিরপুর, ধর্মপাশা উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে সুনামগঞ্জ জেলা পুলিশ ব্যাপক নিরাপত্তা পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। প্রত্যেকটি ভোটকেন্দ্রে পুলিশ ও আনসার সদস্যরা নিরাপত্তা ডিউটিতে নিয়োজিত থাকবেন। তাছাড়া জরুরি প্রয়োজনে মোবাইল টিম, স্ট্রাইকিং টিম ও স্ট্যান্ডবাই টিম সার্বক্ষণিক ভোট কেন্দ্রের নিরাপত্তায় নিয়োজিত থাকবে। যে কোন অপ্রীতিকর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সাদা পোষাকে জেলা বিশেষ শাখার সদস্যগণ প্রতিটি কেন্দ্রের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করবেন। ভোট কেন্দ্রের আইন-শৃঙ্খলা পর্যবেক্ষণে সার্বক্ষণিক বিজ্ঞ জুডিসিয়াল ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটগণ উপস্থিত থাকবেন। এছাড়া জেলা পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ সার্বক্ষণিক নির্বচনী এলাকায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে মাঠে থাকবেন।

উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ডিউটিতে মোতায়েনকৃত অফিসার ও ফোর্সদের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় সার্বিক দিক নির্দেশনা প্রদানের জন্য আজ সোমবার (২০ মে .) সকাল ১০টায় বিশ্বম্ভরপুর, জামালগঞ্জ, তাহিরপুর, ধর্মপাশা থানা প্রাঙ্গণে পৃথক পৃথক ব্রিফিং প্যারেড অনুষ্ঠিত হয়। ব্রিফিং প্যারেডে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম অ্যান্ড অপস্) রাজন কুমার দাস, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সুনামগঞ্জ সদর সার্কেল) জাহিদুল ইসলাম খান, সহকারী পুলিশ সুপার (ছাতক সার্কেল) রণজয় চন্দ্র মল্লিক, সহকারী পুলিশ সুপার (ধর্মপাশা সার্কেল) আলী ফরিদ আহমেদ, উপজেলা নির্বহী অফিসার (বিশ্বম্ভরপুর) মফিজুল ইসলাম, উপজেলা নির্বহী অফিসার (ধর্মপাশা) মোহম্মদ গিয়াস উদ্দিন ও প্রত্যেক থানার অফিসার ইনচার্জসহ নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

প্রতিটি থানা প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত ব্রিফিং প্যারেডে নির্বাচন ডিউটিতে মোতায়েনকৃত প্রত্যেক পুলিশ ও আনসার সদস্যকে পেশাদারিত্বের সাথে দায়িত্ব পালনসহ নির্বাচনকালীন ও নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা এড়ানোর জন্য সর্বোচ্চ সতর্ক থাকার নির্দেশ প্রদান করা হয়। সুনামগঞ্জ জেলার ৪টি উপজেলায় মোট ১৮৩টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হবে। এ উপলক্ষ্য ১০৫০ জন পুলিশ সদস্য নির্বাচনী ডিউটিতে নিয়োজিত থাকবে। পাশাপাশি ২৬৬৭ জন আনসার সদস্য ভোট কেন্দ্র ডিউটিতে মোতায়েন থাকবে।