• ২২শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ১৪ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

যুক্তরাজ্যে প্রবেশ করতে ১৭ হাজার পাউন্ড খরচ করে নদী পার হচ্ছেন অবৈধ অভিবাসীরা

bilatbanglanews.com
প্রকাশিত আগস্ট ২৫, ২০২১
যুক্তরাজ্যে প্রবেশ করতে ১৭ হাজার পাউন্ড খরচ করে নদী পার হচ্ছেন অবৈধ অভিবাসীরা

বিবিএন ডেস্ক: অবৈধভাবে যুক্তরাজ্যে প্রবেশ করতে ১৭ হাজার পাউন্ড খরচ করে নদী পার হচ্ছেন অভিবাসন প্রত্যাশীরা। আর এই কাজে সহায়তাকারী একটি পাচারকারী গ্যাং একটা নৌকা দিয়েই আয় করে কমপক্ষে ৭০০ হাজার পাউন্ড।

ফ্রান্সের অভিবাসন পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ব্রিটেনের দক্ষিণ উপকূলে নৌকায় একটি আসনের জন্য  হতাশ অভিবাসীদের প্রতি একজনকে ১৭ হাজার পাউন্ড এর বেশি চার্জ করছে গ্যাংরা। কিছু অসাধু পাচারকারী ৪০ জন লোককে একটি ছোট জাহাজে করে পারাপার করছে।

বর্তমানে যেভাবে মানবপাচার হচ্ছে সে সম্পর্কে পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এটি এখন মাদকের ব্যবসাকে ছাড়িয়ে গিয়েছে। যে কারনে অপরাধীদের মুনাফা অর্জন এখন অনেক বেশি।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, তারা কেন্ট উপকূলে এক সাথে একদিনে ৬০০ জনের বেশি মানুষদের এক সাথে পারাপার হতে দেখেছেন। যা সঠিক হলে দৈনিক আগমন প্রতিদিনই রেকর্ড ছাড়াচ্ছেন। সর্বশেষ তথ্যমতে, গত ১২ আগস্ট ৫৯২ জন ইংলিশ  চ্যানেলের মাধ্যমে অবৈধভাবে যুক্তরাজ্যে প্রবেশ করেছে বলে নিশ্চিত করা হয়েছে।একই সাথে এই সময় ১৬০ জন ফরাসি কর্মীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বিষয়টি নিয়ে সিনিয়র এক কর্মকর্তা বলেন, এদিকে হোম অফিস এই বছর সীমান্ত সুরক্ষার জন্য কালাইসের কর্তৃপক্ষকে ৫১ মিলিয়ন পাউন্ড প্রদান করেছে। যা ২০২০ সালে দেওয়া  হয়েছিল ৩০ মিলিয়ন।  ফরাসি পুলিশ কমিশনার লরেন্ট হার্স্ট বিষয়টি নিয়ে বলেছেন, ঝুঁকি নিয়ে এভাবে পার হবেন না। এই চক্র গুলো নিজেদের লাভের জন্য আপনাদের জীবন বিপদের মধ্যে ফেলছে।
তিনি  আরও বলেন, পাচারকারীদের জন্য এই ব্যবসার মূল্য মাদক চোরাচালানের চেয়েও বেশি। একটি নৌকায় ৩০ থেকে ৪০ জন মানুষ পার করে তারা আপনাকে উপকার করছে না বরং জীবনকে পানিতে ডুবে যেতে সাহায্য করছে। যদি তারাই উদার হতো তাহলে অবশ্যই এই সময় পাচারকারীরা আপনাকের লাইফ জ্যাকেট দিতো। তাই এভাবে  যুক্তরাজ্যে প্রবেশ না করতে অনুরোধ করেছেন এই কর্মকর্তা।