• ২১শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৮ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ১২ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

প্রবাসীদের স্পেশাল ট্রাইবুনাল দাবিতে লন্ডনে সংবাদ সম্মেলন

bilatbanglanews.com
প্রকাশিত জুন ২৬, ২০২১
প্রবাসীদের স্পেশাল ট্রাইবুনাল দাবিতে লন্ডনে সংবাদ সম্মেলন

বিবিএন ডেস্ক:  লন্ডনে হিউম্যান রাইটস ইউকে’র উদ্যোগে প্রবাসীদের জন্য স্পেশাল ট্রাইবুনাল গঠনসহ অন্যান্য গুরুত্বপুর্ণ দাবি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে জরুরী সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ২৫ জুন হিউম্যান রাইটস এন্ড পীস ফর বাংলাদেশ ইউকে এর উদ্যোগে লন্ডনে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের পক্ষ থেকে প্রবাসীদের কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ দাবি তুলে ধরেন-সংগঠনের ইউকে শাখার প্রেসিডেন্ট মো. রহমত আলী, সেক্রেটারী কাউন্সিলর আয়াস মিয়া এসিসটেন্ট সেক্রেটারী আবুল হোসেনসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। এ সমস্ত দাবি-দাওয়ার মধ্যে রয়েছে প্রবাসীদের জন্য স্পেশাল ট্রাইবুনাল গঠন, প্রবাসীদের এনআইডি সরবরাহে কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহন ও প্রবাসীদের জন্য বর্তমানে যে কয়েকটি সেল রয়েছে তাতে প্রবাসী প্রতিনিধিসহ বিভিন্ন পেশার মানুষকে অন্তর্ভুক্ত করে একটি যৌথ সেল করা ও প্রবাসী মুক্তিযোদ্ধার সঠিক তালিকা প্রনয়ন প্রভৃতি।

তবে ইতোমধ্যে দেশে মামলা করার ক্ষেত্রে আইডি কার্ডের নম্বরের পরিবর্তে পাসপোর্ট নম্বর সংযুক্ত করার যে সুযোগ দেয়া হয়েছে এ জন্য সংগঠনের পক্ষ থেকে থেকে সংশ্লিস্ট সকলকে ধন্যবাদ জানানো হয়। এ ব্যাপারে যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন সংগঠন ও ব্যক্তি যে ভুমিকা রেখেছেন তার সাথে এ সংগঠনটিও তাদের কর্মসূচি প্রনয়ন করে।

এ ব্যাপারে ইউকে শাখার পক্ষ থেকে বিবৃতি প্রদান ছাড়াও সংগঠনের কেন্দ্রীয় প্রেসিডেন্ট এডভোকেট সুপ্রিম কোর্টের বিশিস্ট আইনজীবি এডভোকেট মনজিল মোরসেদের সহযোগিতায় আদালতে একটি এ রায়ের ব্যাপারে একটি রিভিউ পিটিশন দাখিলের জন্য প্রচেষ্ঠা চালায়। এ লক্ষ্যে কেন্দ্রীয় প্রেসিডেন্ট বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের বিশিষ্ঠ আইনজীবি এডভোকেট মনজিল মোরসেদ আদালত থেকে রায়ের কপি সংগ্রহ করার পর যখন পরবর্তী ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছিলেন তখনই তার পুর্নাঙ্গ রায়ে প্রবাসীদের দাবির এ বিষয়টি চলে আসে তাই আপাতত সংগঠনের পক্ষ থেকে স্বাগত জানানো হয়।

তবে এ রায়টির কার্যকরিতা শুধুমাত্র মামলা-মোকদ্দমার ক্ষেত্রে সীমাবদ্ধ না রেখে দেশের নাগরিকগন এনআইডি কার্ডের মাধ্যমে অন্যান্য যে সমস্ত সুযোগ-সুবিধা লাভ করে থাকেন প্রবাসীরাও সেভাবে পাসপোর্ট আইডি হিসাবে ব্যবহার করে সে সমস্ত সুবিধা লাভ করতে পারেন সে ব্যাপারে অনুরোধ জানান।

লিখিত বক্তব্যে আরো বলা হয় যে, যুক্তরাজ্য প্রবাসীদের অবদানের কথা সবার জানা । বিভিন্ন সূত্র থেকে প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ি এদেশে প্রায় ৭লক্ষ প্রবাসী বসবাস করেন। তারা মুক্তিযুদ্ধের সময় এর পক্ষে শুধু বিশ্ব জনমত গঠন নয় মুক্তিযোদ্ধাদের রসদ সামগ্রী ক্রয় করার জন্য সে সময় বিচারপতি আবু সাঈদ চৌধুরীর নেতৃত্বে একশন কমিটি গঠিত হলে তাতে ৪লাখ ১২ হাজার ৮৩ পাউন্ড প্রবাসী সরকারের হাতে তুলে দেন। এরপর প্রায় সাড়ে চার কোটি টাকার সমপরিমান পাউন্ড বাংলাদেশের জন্য বিশ্বব্যাংকের রিজার্ভ ফান্ডে জমা রাখেন।

তাছাড়া দেশ স্বাধীন হওয়ার পর ১৯৭২ সালে ব্রিটেন থেকে একটি চার্টারড বিমান ক্রয় করে দেশে পাঠান। সাথে সাথে বিভিন্ন দেশের প্রবাসীরা প্রতিবছর যে রেমিটেন্স দেশে পাঠান তা অন্যকোন মাধ্যমে লাভ করা সম্ভব নয়। তাই এ সমস্ত দাবিগুলি বাস্তবায়নের মাধ্যমে প্রবাসীদের নানা সমস্যা লাগবে সরকার এগিয়ে আসবেন বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করা হয়। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, সংগঠনের সৌদি আরব শাখার আহবায়ক এবি এম নুরুল হক, সদস্য মিসবাহ জামাল, ইসলাম উদ্দিন ও আঙ্গুর আলী প্রমূখ ।