• ২৯শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ১৫ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ , ৩০শে জিলকদ, ১৪৪৩ হিজরি

গোলাপগঞ্জে পুকুরে ডুবে দুই শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু:পরিবারে শোকের মাতম

bilatbanglanews.com
প্রকাশিত নভেম্বর ১, ২০২০
গোলাপগঞ্জে পুকুরে ডুবে দুই শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু:পরিবারে শোকের মাতম

 

সিলেট প্রতিনিধি: গোলাপগঞ্জ উপজেলার বাঘা ইউনিয়নের রুস্তমপুর গ্রামের দুটি নিষ্পাপ শিশু পুকুরে ডুবে মারা গেছে। নিহতরা হলো রুস্তমপুর গ্রামের সাবেক মেম্বার ফয়জুর রহমানের শিশুপুত্র তাওসিফ আহমদ (৬) ও একই গ্রামের কবির মিয়ার পুত্র আল আমিন (৭)সবসময়ই ওরা দুজন বন্ধুর মতো একসাথে চলাফেরা করতো।স্কুলে যেতো। খেলাধুলায় মেতে থাকতো।
কে জানতো এভাবে দুটি শিশু বন্ধু একইসাথে এই শিশুবয়সে দুনিয়া থেকে চিরবিদায় নেবে।তাওসিফ আর আল আমিনকে হারিয়ে দুই পরিবারে চলছে শোকের মাতম।এলাকায় নেমে এসেছে
শোকাভিভূত পরিবেশ। মা বাবা স্বজনদের আহাজারিতে আকাশ ভারী হয়ে উঠেছে।

তাদের নামাজের জানাজা রোববার বেলা ২.৩০ টায় রুস্তমপুর শাহী ঈদগাহ মাঠে অনুষ্ঠিত হয়।
জানাজায় রুস্তমপুর গ্রামসহ আশপাশ এলাকার সর্বস্তরের মানুষ ও এলাকার সামাজিক রাজনৈতিক ও বিভিন্ন পেশার মানুষকন অংশ নেন। জানাজা শেষে রুস্তমপুর শাহী ঈদগাহ সংলগ্ন কবরস্হানে তাদের দাফন করা হয়।

শনিবার ) (৩১অক্টোবর) রুস্তমপুর গ্রামের বোরহান উদ্দিন রোডের পাশের খালে মাছ ধরতে যায় নিহত তাওসিফ ও আল আমিন। মাছ ধরার পর তাদের শরীরের কাদা পরিষ্কার করতে দুইজনই মিলে রুস্তমপুর গ্রামের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের পুকুরে নামে । পুকুর থেকেই নিখোঁজ হয়ে যায় দুই জন। সন্ধায় দুই পরিবারে খোঁজ পড়ে। কিন্তু ততোক্ষনে পুকুরের পানিতে তলিয়ে যায় ওরা দুইজন। দুজনই হাতিমনগর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র। সবসময়ই একসাথে বন্ধুর মতো থাকতো তাওসিফ ও আল আমিন ।।
শনিবার বিকালে নিখোঁজ হওয়ার পরে অনেক খোজাঁখুজির পর রাতে রুস্তমপুর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের পুকুরে ও নিজ বাড়ির পুকুরে জাল ফেলা হলেও তাদের কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি। রোববার সকাল ৮ টায় তাদের লাশ রুস্তমপুর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের পুকুরে ভেসে উঠে। সেখান থেকে তাদের নিথর দেহ নিজ নিজ বাড়িতে নিয়ে আসা হলে কান্নায় ভেঙে পড়েন উপস্হিত সবাই।