• ১৬ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ২রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ১০ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

হত্যাকান্ডের  বিষয়ে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার প্রেস ব্রিফিং 

bilatbanglanews.com
প্রকাশিত মে ৩, ২০২৪
হত্যাকান্ডের  বিষয়ে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার প্রেস ব্রিফিং 
লতিফুর রহমান রাজু.সুনামগঞ্জ: সুনামগঞ্জে স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন হয়েছে।গত বুধবার রাত ১১টায় সদর উপজেলার কুরবাননগর ইউনিয়নের সুরমা নদীর পুর্বপার জালাল উদ্দিনের ক্রাশার মিল সংলগ্ন চর থেকে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ।ঘটনার ২ ঘন্টার মধ্যে খুনি স্বামী রহমত আলী(২৫)কে পুলিশ গ্রেফতার করতে সক্ষম হন।গ্রেফতারের পর সদর থানায় প্রেস ব্রিফিংকালে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাজন দাস জানান,সুরমা ইউনিয়নের বেড়িগাও গ্রামের মৃত আব্দুল মনাফের ছেলে রহমত আলীর সাথে ১ বছর পুর্বে চট্রগ্রামে একটি গার্মেন্টসে সুমা আক্তারের সাথে পরিচয় হয়। পরিচয়ের সুত্র ধরে উভয়ের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। পরে দুজনের সম্মতিতে বিয়ে করেন তারা।এর আগে রহমত আরেকটি বিয়ে করেন। বিয়ের পর থেকে দুজনের পারিবারিক কলহ চলতে থাকে।এবং রহমত আলী তার স্ত্রীকে প্রায় সময় সন্দেহের চোখে দেখতেন।এর জের ধরে গত বুধবার রাত  সাড়ে ১১,টার সময়
বান্ধবীর বাড়ি থেকে সুমাকে নিজ বাড়ি বেড়িগাও নিয়ে যাওয়ার কথা বলে অটোরিকশা করে বুদারগাও পয়েন্টে নেমে পাঁয়ে হেঁটে যাওয়ার পথে রহমত আলী তার স্ত্রী সুমাকে লোহার রড দিয়ে মাথায় আঘাত করে।এ সময় সুমা চিৎকার দিলে খুনি রহমত আলী মুখে ওড়না দিয়ে শ্বাসরোধ করেন। এর পরে মৃত্যু নিশ্চিত করার জন্য দাঁড়ালো ছুরি দিয়ে শরীরের বিভিন্ন অংশে ঘাই মেরে তার মৃত্যু নিশ্চিত করেন।পরে লাশ গুম করার জন্য লাশ নিজ কাঁধে নিয়ে নবীনগর নির্জন চরে ফেলে আসে। গোপন সংবাদ পেয়ে
বুধবার সদর থানার অফিসার ইনচার্জ খালেদ চৌধুরীর নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে  গভীর রাতে পৌর এলাকার নবীনগর খন্দকার হাসপাতালের সামনে থেকে গ্রেফতার খুনি রহমত আলীকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের পর আসামি খুনের সত্যতা স্বীকার করেন।এবং তার দেখানো পথেই পুলিশ লাশ উদ্ধার করে।