• ৩০শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ১৬ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ , ১লা জিলহজ, ১৪৪৩ হিজরি

অবশেষে নিজস্ব ঠিকানায় কার্যক্রম শুরু করেছে ছাতকের নোয়ারাই ইউনিয়ন পরিষদ ভবন

bilatbanglanews.com
প্রকাশিত জুন ৪, ২০২২
অবশেষে নিজস্ব ঠিকানায় কার্যক্রম শুরু করেছে ছাতকের নোয়ারাই ইউনিয়ন পরিষদ ভবন

 

নিজস্ব প্রতিবেদক অবশেষে নিজস্ব ঠিকানায় ফিরছে ছাতক উপজেলার নোয়ারাই ইউনিয়ন পরিষদ ভবন। প্রায় দুই যুগ পর পরিষদের জনপ্রতিনিধিরা নিজস্ব ভবনে দাপ্তরিক কাজ শুরু করেছেন।
জানাযায় স্থানীয় ছনখাইড় গ্রামার যুক্তরাজ্য প্রবাসী, বিশিষ্ট সমাজ সেবক মো; আশক আলীর দানকৃত ভূমিতে পরিষদের নতুন ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয় ২০০১৭ সালের ২৭ জানুয়ারি  শুক্রবার।

স্থানীয় কলাবাড়ী পয়েন্ট সংলগ্ন এলাকায় ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন উপজেলা উপসহকারী প্রকৌশলী জাকির হোসেন।
ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে ছাতক উপজেলা প্রকৌশল অধিদপ্তরের কার্যসহকারী রফিক মিয়া, ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান জুবেদ আলী তালুকদার, ইউপি চেয়ারম্যান আফজাল আবেদীন আবুল, সাবেক মেম্বার মনোহর আলী, তোফাজ্জল হোসেন, স্থানীয় হাজি উস্তার আলী, হাজি আজেফর আলী ও ওয়ারিছ আলী উপস্থিত ছিলেন।

১৯৮২সালে ছাতক সিমেন্ট কারখানার পাওয়ার হাউজের উল্টা দিকে নোয়ারাই-বাংলাবাজার সড়ক সংলগ্ন টিলায় নোয়ারাই ইউনিয়ন পরিষদের কার্যালয় ভবন নির্মিত হয়। ৩কক্ষ বিশিষ্ট ভবনটি নির্মাণ কাজে অনিয়মের কারণে কয়েক বছরের মধ্যেই ভবনটিতে ছোট-ছোট ফাটলের সৃষ্টি হয়। ক্রমান্বয়ে ফাটল বড় আকার ধারন করতে থাকে।

পরিষদের চেয়ারম্যান-মেম্বারসহ কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বিষয়টি জেনেও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নিয়মিত ইউনিয়ন পরিষদের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছিলেন। ভবন জুড়েই বড়-বড় ফাটলের সৃষ্টি হয়েছিল।

১৯৯৭ সালে ছাতক পৌরসভা প্রতিষ্ঠিত হবার পর নোয়ারাই ইউনিয়ন পরিষদ ও ছাতক সদর ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় পৌরসভার সীমানায় পড়ে যায়। উভয় ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় পৌরসভার অভ্যন্তরে থেকেই পরিষদের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছিলেন। ভূমি জটিলতার কারণে দীর্ঘ দিনেও ইউনিয়ন পরিষদের এ দুটি কার্যালয় স্থানান্তর করা সম্ভব হয়নি।

চলতি বছর জানুয়ারি মাসে নতুন ভবনের নির্মাণের কাজ শেষ হয়।পুরাতন ভবন অত্যান্ত ঝুঁকি পূর্ণ হওয়ায় মার্চে নতুন ভবনে অফিস স্থানান্তর করে অফিসিয়াল সেবা দেয়া হচ্ছে।

এব্যাপারে ভূমি দাতা মো আশক আলী বলেন, অনেক কষ্ট ও ত্যাগের বিনিময়ে ইউনিয়ন পরিষদের ভবন নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হওয়ায় এলাকাবাসী অত্যন্ত আনন্দিত। আশাকরি অচিরেই উদ্বোধনী করে আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করবে নতুন ভবন। তিনি ইউনিয়ন পরিষদের নাম পরিবর্তনের জোর দাবি জানান সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কাছে।

ভুমি দাতার নামের সাইনবোর্ড লাগানোর সময়,এব্যারে ইউপি চেয়ারম্যান দেওয়ান খালিক রাজা বলেন,নতুন ভবনে আমরা স্বস্তিতে কাজ করছি।দীর্ঘদিন জীবন মৃত্যুর ঝুঁকি নিয়ে পুরাতন ভবনে কাজ করেছি।বিভিন্ন সমস্যার কারণে ভবনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন অনুষ্ঠান করা যাচ্ছেনা।অল্প কিছুদিনের মধ্যেই উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হবে।