• ১৬ই মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ২রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ , ১৫ই শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

আল্লামা হাবিবুর রহমান ছিলেন যুগ শ্রেষ্ঠ শায়খ ও সকল মত-পথের আলেমদের অভিভাবক

bilatbanglanews.com
প্রকাশিত মার্চ ১০, ২০২২
আল্লামা হাবিবুর রহমান ছিলেন যুগ শ্রেষ্ঠ শায়খ ও সকল মত-পথের আলেমদের অভিভাবক

 

 

বিবিএন ডেস্ক:আল্লামা হাবিবুর রহমান মুহাদ্দিস ছাহেব রহ. স্মরণে সিলেটে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত  হয়েছে।  আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন- শায়খুল হাদীস আল্লামা হাবিবুর রহমান ছিলেন বর্ষীয়ান আলেমে দ্বীন। তিনি ছিলেন সিলেটের সকল মতের পথের আলেমদের অভিভাবক।

তিনি আমৃত্যু কুরআন ও হাদীসের আলো ছড়িয়ে দিতে কাজ করেছেন। বর্তমান যুগে তাঁর মতো জ্ঞানী প্রজ্ঞাবান আল্লাহওয়ালা গুণীজন কম আছেন। সত্যিকারের আল্লাহপ্রেমিক ও রাসুল (সাঃ) এর খাঁটি অনুসারী হিসেবে তিনি সারাজীবন অতিবাহিত করেছেন। তাঁর জ্ঞানের পরিধি দেশের গন্ডি পেরিয়ে বিভিন্ন দেশে বিস্তৃত ছিল। দেশের দ্বিধাবিভক্ত আলেম সমাজকে ঐক্যবদ্ধ করতে তিনি আজীবন চেষ্টা করে গেছেন।

তাঁর স্বপ্ন পূরণে আলেম সমাজকে ঐক্যবদ্ধ করতে সবাইকে স্ব স্ব অবস্থান থেকে চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে। তিনি দীর্ঘ ৬০ বছর দ্বীনি শিক্ষার প্রসারে কাজ করে গেছেন। প্রখ্যাত হাদিস বিশারদ আল্লামা হাবিবুর রহমানের জীবনী তরুণ প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে হবে।

বুধবার বিকেলে সৎপুর কামিল মাদ্রাসা ও ইছামতি কামিল মাদ্রাসার সাবেক অধ্যক্ষ শায়খুল হাদীস আল্লামা হাবিবুর রহমান (র.) স্মরণে মাজলিসুল উলামা বাংলাদেশ আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে বক্তারা উপরোক্ত কথা বলেন।
প্রবীন আলেমে দ্বীন গাছবাড়ী জামেউল উলুম কামিল মাদ্রাসার সাবেক অধ্যক্ষ মাওলানা বশির উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও মাজলিসুল উলামার সদস্য মাওলানা ওলীউর রহমান সিরাজীর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সিলেটের বিভিন্ন অঙ্গনের উলামায়ে কেরামগণ বক্তব্য রাখেন। এছাড়াও বিভিন্ন শ্রেণীপেশার বিপুল সংখ্যক ধর্মপ্রাণ মানুষ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে আল্লামা হাবিবুর রহমানের মাগফেরাত কামনায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়। এছাড়া অনুষ্ঠানে মুসলিম উম্মাহর ঐক্য, দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মাজলিসুল উলামার মহাসচিব ড এনামুল হক চৌধুরী আল মাদানী।
মুফতী মাওলানা দেলোয়ার হোসেনের পবিত্র কুরআন থেকে তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে সূচীত অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সিলেটের প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন শায়খুল হাদীস আল্লামা ইসহাক আল মাদানী, গবেষক মাওলানা শাহ নজরুল ইসলাম, আল্লামা হাবিবুর রহমান (র.) এর ছেলে মাওলানা আব্দুল আউয়াল হেলাল, ইসলামী চিন্তাবিদ মাওলানা রেজাউল করিম জালালী, আল্লামা হাবিবুর রহমান (র.) এর জামাতা ও গোবিন্দনগর ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ শায়খ মাওলানা আব্দুস সালাম আল মাদানী, শাহজালাল জামেয়া ইসলামিয়া কামিল মাদ্রাসা পাঠানটুলার অধ্যক্ষ মাওলানা লুৎফুর রহমান হুমায়দী, সাবেক অধ্যক্ষ হাফিজ মাওলানা আব্দুল হালিম, রাখালগঞ্জ ফাজিল মাদ্রাসার সাবেক অধ্যক্ষ মাওলানা হাবিবুর রহমান, শায়খ হাফিজ মাওলানা শফিকুর রহমান আল মাদানী, বুরাইয়া কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ হাফিজ মাওলানা সিরাজুল ইসলাম ফারুকী, কানাইঘাট মনসুরিয়া কামিল কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আতাউর রহমান, কুদরত উল্লাহ জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব শায়খ সাঈদ নুরুজ্জামান আল মাদানী, ফেঞ্চুগঞ্জ মোহাম্মদিয়া কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা ফরিদ আহমদ, কুদরত উল্লাহ হাফিজিয়া মাদ্রাসার সুপার হাফিজ মিফতাহুদ্দীন আহমদ, সিলেট আইডিয়াল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ড. এ এইচ এম সুলায়মান, জাতীয় ইমাম সমিতি সিলেট মহানগর সভাপতি মাওলানা হাবিব আহমদ শিহাব, মুহাম্মদিয়া ইসলামিয়া হাফিজিয়া দাখিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সৈয়দ কুতুবল আলম ও জকিগঞ্জ উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান মো: আব্দুস সবুর প্রমূখ।
সভাপতির বক্তব্যে মাওলানা বশির উদ্দিন আহমদ চৌধুরী বলেন, আল্লামা হাবিবুর রহমান আমার দীর্ঘদিনের সাথী ছিলেন। তিনি আমৃত্যু আলেম-উলামাদের ঐক্যবদ্ধ করতে কাজ করে গেছেন। গুণী আলেমদের মূল্যায়ন করলে তরুণ প্রজন্ম উপকৃত হবে।
শায়খ ইসহাক আল মাদানী বলেন, আল্লামা হাবিবুর রহমান ছিলেন সময়ের শ্রেষ্ঠ সন্তান। তিনি ইসলামের সুমহান আলো ছড়িয়ে দিতে আজীবন কাজ করে গেছেন। তার কর্মের খ্যাতি দেশের গন্ডি পেরিয়ে বিভিন্ন দেশে ছড়িয়েছে। এমন ক্ষনজন্মা আলেমে দ্বীনের জীবনী তুলে ধরতে হবে। তাদের রেখে যাওয়া কাজ চালিয়ে যেতে হবে।
শাহ নজরুল ইসলাম বলেন, তার মত বিনম্র আলেম বর্তমান সমাজে বিরল। তার চেহারা দিকে তাকালে মন স্বাক্ষী দিতো তিনি সত্যিকারের একজন আল্লাহওয়ালা ব্যক্তি।
আল্লামা হাবিবুর রহমান (র.) এর ছেলে মাওলানা আব্দুল আউয়াল হেলাল বলেন, আমার আব্বার জন্য এমন উদ্যোগ নেয়ায় পরিবারের পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। আমাদের সমাজে জীবিত থাকতে আলেমদের মূল্যায়ন হয়না। মৃত্যুর পরে হয়। এই সিস্টেম থেকে বেরিয়ে আসা উচিত। মাত্র এক সপ্তাহের ব্যবধানে আমি আমার মা ও বাবাকে হারিয়েছি। উনাদের কথা মনে হলে নিজেকে ধরে রাখতে পারিনা। আমি দীর্ঘ ২২ বছর ধরে যুক্তরাজ্যে বসবাস করছি। প্রতিবছরই আব্বা সেখানে যেতেন। আব্বার জন্য মাজলিসুল উলামার যে কোন উদ্যোগের সাথে আমি সব সময় পাশে থাকবো।
মাওলানা রেজাউল করিম জালালী বলেন, আল্লামা হাবিবুর রহমান ছিলেন বর্তমান সময়ের প্রবীণ আলেম। তাঁর কাছ থেকে যারা ইলমে নুর হাসিল করেছেন তাদেরকে কুরআন ও হাদীসের প্রসারে অগ্রণী ভুমিকা পালন করতে হবে। বিজ্ঞপ্তি

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •