• ১২ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ২৯শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ৬ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

হবিগঞ্জের এসপি মুরাদ আলীর অপসারণ দাবি বিএনপির

bilatbanglanews.com
প্রকাশিত ডিসেম্বর ২৩, ২০২১
হবিগঞ্জের এসপি মুরাদ আলীর অপসারণ দাবি বিএনপির
বিবিএন ডেস্ক:  হবিগঞ্জের পুলিশ সুপার (এসপি) এস এম মুরাদ আলী, ওসি নাজমুল হাসান ও মাসুক আলীর অপসারণের দাবি জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর গুলশানস্থ চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা অবিলম্বে এসপি মুরাদ আলী, ওসি নাজমুল হাসান, ওসি মাসুক আলীর অপসারণ দাবি করছি। একইসঙ্গে একটা নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে তাদের বিচারের আওতায় আনার দাবি করছি। আর এই ভয়াবহ অত্যাচার, নির্যাতন, গুলিবর্ষণের প্রতিবাদে আগামী ২৪শে ডিসেম্বর সিলেট বিভাগের উপজেলাগুলোতে এবং ২৫শে ডিসেম্বর সিলেট বিভাগের জেলা পর্যায়ে প্রতিবাদ বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হবে।

বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে চিকিৎসার দাবিতে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বুধবার সমাবেশের আয়োজন করে হবিগঞ্জ জেলা বিএনপি। সমাবেশকে কেন্দ্র করে বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে পুলিশসহ শতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। এতে পণ্ড হয় বিএনপি’র সমাবেশ।

মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার পরিকল্পিতভাবে গণতান্ত্রিক পরিসরটাকে একেবারে সংকুচিত করে ফেলেছে। আমরা যে কর্মসূচিগুলো করছি এগুলো একেবারেই শান্তিপূর্ণ। অথচ তারা আইনশৃঙ্খলাবাহিনী পরিকল্পিতভাবে এগুলোতো বাধা দিয়ে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাকে সম্পূর্ণভাবে সংকুচিত করে ফেলেছে।

তিনি বলেন, আপনার একটা বিষয় লক্ষ্য করে দেখবেন, হবিগঞ্জে যে গুলিবর্ষণ হয়েছে এর মূল কারণটি ছিল হবিগঞ্জে যেহেতু আমাদের শক্তিশালী অবস্থান রয়েছে। আর সেই জায়গাতেই তার আঘাত করেছে। আমরা একটা কথা খুব স্পষ্ট করে বলতে চাই, এইভাবে দমন-পীড়ন করে, অত্যাচার করে, গুম করে কখনোই জনগণের যে ন্যায় সঙ্গত দাবি, গণতান্ত্রিক সমাজের জন্য, গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের জন্য আমাদের সে আন্দোলন কখনোই দমন করা যাবে না। আমাদের কর্মসূচিতে জনগণের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে প্রমাণ করে জনগণ এ সরকারকে সম্পূর্ণ প্রত্যাখ্যান করেছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন- বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, নজরুল ইসলাম খান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নাল আবদীন ফারুক, আব্দুল মুক্তাদির চৌধুরী, সাবেক এমপি শাম্মী আক্তার প্রমুখ।