• ২০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ১২ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

নতুন করোনার ধরণ:উদ্বিগ্ন ব্রিটেনের স্বাস্থ্য বিভাগ

bilatbanglanews.com
প্রকাশিত নভেম্বর ২৬, ২০২১
নতুন করোনার ধরণ:উদ্বিগ্ন ব্রিটেনের স্বাস্থ্য বিভাগ

বিবিএন ডেস্ক: যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে বলা হয়েছে, আফ্রিকার এই ধরনটি ব্রটসওয়ানায় প্রথম পাওয়া গিয়েছে। এই ধরনটি এখন পর্যন্ত পাওয়া সব থেকে ভয়ানক ধরন বলেও মন্তব্য করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।  আর এ কারনে এই ধরনটিকে ভয়ানক ধরন হিসেবে আখ্যায়িত করেছে ব্রিটেনের স্বাস্থ্য বিভাগ।

বি.১.১.৫২৯  একাধিক মিউটেশনের সমন্বয়ে গঠিত। ধরনা করা হচ্ছে ৩২ ধরনের মিউটেশন থাকার কারনে দ্রুত মানুষের শরীরে প্রবেশ করে।
এদিকে আর একটি ভয়ানক খবর দিয়েছে যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্য নিরাপত্তা সংস্থা। তারা বলেছে, করোনার নতুন এ ধরনে যে স্পাইক প্রোটিন রয়েছে, সেটি মূল করোনাভাইরাসের স্পাইক প্রোটিন থেকে ভিন্ন। আর ওই স্পাইক প্রোটিনকে বিবেচনায় নিয়েই করোনার টিকাগুলো তৈরি করা হয়েছে। সে কারণে এসব টিকা করোনার নতুন ধরনটির ক্ষেত্রে কার্যকর হবে কি না, তা নিয়ে সংশয় রয়েছে।

যুক্তরাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী গ্রান্ট শাপসকে উদ্ধৃত করে স্কাই নিউজ বলেছে, ‘বিজ্ঞানীরা বলছেন, তাঁরা এখন পর্যন্ত করোনার যতগুলো ধরন দেখেছেন, তার মধ্যে এটাই সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য।’
করোনার নতুন ধরন নিয়ে বৈঠকে বসেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। ডব্লিউএইচও বলেছে, বৈঠকের পর নতুন নির্দেশনা জারি করা হবে।

বিবিসি জানিয়েছে, বৈঠক চলাকালে ডব্লিউএইচওর একজন মুখপাত্র বলেছেন, সংস্থাটি বর্তমানে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপের বিরুদ্ধে সতর্ক করছে এবং সরকারকে ঝুঁকিভিত্তিক বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি প্রয়োগের পরামর্শ দিচ্ছে।
এদিকে আফ্রিকার বিজ্ঞনীরা বলছে, নতুন যে ভেরিয়েন্টই শনাক্ত হচ্ছে সেটারই সংক্রমণ ক্ষমতা ডেলটা ভেরিয়েন্টের চেয়ে বেশি। ফলে করোনার মহামারি ইতি টানার ক্ষেত্রে বড় চ্যালেঞ্জ হতে পারে এসব ভেরিয়েন্ট।