• ৪ঠা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ২০শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ , ২৩শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

সিলেটে সম্পত্তি দখলে মা-বাবাকে গুমের হুমকি ছেলের

bilatbanglanews.com
প্রকাশিত নভেম্বর ১৩, ২০২১
সিলেটে সম্পত্তি দখলে মা-বাবাকে গুমের হুমকি ছেলের

সিলেট প্রতিনিধি:  সম্পত্তি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান দখল করতে নিজের বাবাকে গু’ম ও মা’দক মা’মলায় ফাঁ’সানোর হু’মকি দিয়েছেন ছে’লে। এমনকি শ্বশুর বাড়ির লোকজন নিয়ে আপন ভাইবোন ও বাসার ভাড়াটিয়াদের উপর হা’মলাও করিয়েছেন।

তাছাড়া মিথ্যা মা’মলা দিয়ে ছোটভাই ও বোনকে জে’লহাজতে পাঠিয়েছেন তিনি। সেই মা’মলায় আ’সামি করেছেন বাবাকেও। নিজের ছে’লের অব্যাহত হু’মকিতে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন ভুক্তভোগী বাবাসহ পুরো পরিবার।

শনিবার (১৩ নভেম্বর) সিলেট নগরীর একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলন করে নিজের অসহায়ত্বের কথা জানিয়েছেন ভুক্তভোগী পিতা সিলেটের প্রবীণ ব্যবসায়ী মোহাম্ম’দ আলী কাদর। তিনি নগরীর শাহী ঈদগাস্থ হাজারীবাগ ৩নং বাসার স্থায়ী বাসিন্দা।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, আমি এমন সন্তানের বাবা না। মৃ’ত্যুর পর ওই ছে’লে ও পুত্রবধু যেন আমা’র ম’রদেহ না দেখে। এমন কুলাঙ্গার সন্তান যেন কোনো বাবা-মা’র ঘরে না জন্মে। এসময় তিনি সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বলেন, আমি মিনতি করছি আপনাদের কোনো দিন বাবা মা’র সাথে বেয়াদবি করবেন না। বাবা মা কে ক’ষ্ট দিবেন না।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে মোহাম্ম’দ আলী কাদর বলেন, আমি সিলেট নগরীর পরিচিত একজন ব্যবসায়ী। আমা’র তিন ছে’লের নামে নগরীর শাহী ঈদগাহে একটি বাসা রয়েছে। জে’লরোড ও মহাজনপট্টি এলাকায় আমা’র তিনটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানও রয়েছে। সন্তানদের দায়িত্ব পালনের অংশ হিসেবে ছোট ছে’লে আবদুল মোমিন ‘মেসার্স আলী মেশিনারিজ’, মেজো ছে’লে আলী হাসান আমিন ‘মেসার্স আলী কর্পোরেশন’ ও বড় ছে’লে আবদুল্লাহ আল মামুন ‘আলী এন্ড সন্স’ নামে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে আসছে।

আলী কাদর বলেন, পূত্রবধূর চক্রান্তে আমা’র বড় ছে’লে মামুন বাসাবাড়ি ও সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান দখল করতে ম’রিয়া হয়ে ওঠেছে। তার শ্বশুর বাড়ির লোকজন দিয়ে আমা’র ছোট ছে’লে ও বাসার ভাড়াটিয়াদের উপর হা’মলা করিয়েছে। মিথ্যা মা’মলা দিয়ে আমা’র এক ছে’লে ও এক মে’য়েকে কারাগারে পাঠিয়েছে। এখন তার অব্যাহত হু’মকিতে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার মধ্যে দিনাতিপাত করছি বাকি সবাই। যেকোনো সময় বড় ধরণের হা’মলার আশ’ঙ্কা করছি আম’রা।

তিনি বলেন, ১৩ বছর আগে হেতিমগঞ্জের তুরবাগ এলাকার রমিজ আলীর মে’য়ে পলি আক্তার প্রিয়ার সাথে বড় ছে’লে আবদুল্লাহ আল মামুনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে আমা’র সংসারে শুরু হয় ষড়যন্ত্র। বউয়ের প্ররোচণায় বড় ছে’লে আমা’র স্থাবর-অস্থাবর সকল সম্পত্তি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নিজের নামে দখলে নিতে ম’রিয়া হয়ে উঠে। ২০১৬ সালে আমি অ’সুস্থ হয়ে পড়লে সংসারের বড় ছে’লে হিসেবে ব্যবসায়ীক সকল কাগজপত্র ও মূল্যবান সামগ্রী ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সংরক্ষিত স্থানে নিরাপদে রাখার জন্য তার হাতে তুলে দেই। সেই সুযোগে মামুন আমা’র ছোট ছে’লে আবদুল মোমিন পরিচালিত প্রতিষ্ঠান জে’ল রোডস্থ ‘আলী মেশিনারীজ’ এর জমিদারকে ভুল বুঝিয়ে দোকানের সকল কাগজপত্রে নিজের নাম লিখে নেয়। পরে জমিদার পরবর্তীতে মামুনের প্রতারণার বিষয়টি ধ’রা পড়ে। এ বিষয়ে মামুনকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে কোনো সুদুত্তর দিতে পারেনি।

আলী কাদর বলেন, ২০১৮ সালের আগষ্ট মাসে মামুন বাসায় আমা’র স্ত্রী’কে (তার মাকে) গালাগাল, ভ’য়-ভীতি প্রদর্শন ও বেয়াদবিমূলক আচরণ করে। আমা’র স্ত্রী’ যাতে বিষয়টি আমাকে ফোনে জানাতে না পারেন তাই বাসায় থাকা মোবাইল ফোনের সুইচ অফ করে খাটের নীচে ফেলে রেখে স্ত্রী’সহ স্বেচ্ছায় ওইদিন বাড়ি ছেড়ে চলে যায়। তারপর থেকে মামুন স্ত্রী’সহ নগরীর ফরহাদ খাঁ পুলস্থ এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করে আসছে।

আলী কাদর আরো বলেন, মামুন স্ত্রী’সহ অন্যত্র যাওয়ার পর থেকে শাহী ঈদগাহস্থ তিন ছে’লের নামে বন্টনকৃত বাসাটি দখলের চেষ্ঠা করে। গত ১ নভেম্বর সন্ধ্যায় স্ত্রী’ ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনসহ বহিরাগত লা’ঠিয়াল বাহিনী নিয়ে আমা’র বাসার ভাড়াটিয়া এবং ছোটো ছে’লে আবদুল মুমিনের উপর অ’তর্কিতভাবে হা’মলা করে র’ক্তাক্তভাবে জ’খম করে। পরে স্থানীয়দের হস্তক্ষেপে বড় ছে’লে মামুন পালিয়ে যায়। স’ন্ত্রাসী হা’মলার দুইদিন পর ৩ নভেম্বর সিলেট কোতোয়ালি থা’নায় একটি মিথ্যা মা’মলা দায়ের করে। সেই মা’মলায় বর্তমানে আমা’র মেজো ছে’লে আলী হাসান আমিন (৩০) এবং মে’য়ে আফসানা বেগম শিমু (৩৮) জে’লহাজতে রয়েছে। সেই মা’মলায় আমাকেও আসামী করা হয়েছে। বর্তমানে সেই মা’মলায় আমি, আমা’র ছোট ছে’লে আব্দুল মুমিন, ভাতিজা সাহেদ আলী, আমাদের গাড়ি চালক কাওসার আহম’দ জামিনে রয়েছি।

বড় ছে’লের হু’মকিতে আতঙ্কগ্রস্ত উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমি হার্টের রোগী, দুটি রিং বসানো। বড় ছে’লের একের পর এক আচরণে এখন আমি আরও আতঙ্কগ্রস্থ। এর আগে একাধিকবার মামুনের বি’রুদ্ধে অ’ভিযোগ লিখে কোতোয়ালি এবং এয়ারপোর্ট থা’নায় জমা দেওয়ার চেষ্টা করি। কিন্তু মামুন খবর পেয়ে আমাকে লা’ঞ্ছিত করে। এমনকি থা’নায় অ’ভিযোগ দিলে আমাকে মা’দক মা’মলায় ফাঁ’সানো ও গু’ম করবে বলেও শাসিয়ে দেয়। তাঁর এমন উদ্যত আচরণে আমি এবং আমা’র পরিবারের জীবন-জীবিকা হু’মকির মুখে। ঘটনার সুষ্ঠু ত’দন্ত করে ব্যবস্থা নিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হস্তক্ষেপ কা’মনা করেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মোহাম্ম’দ আলী কাদরের স্ত্রী’ রুকসানা বেগম, পুত্রবধূ শাহানা আক্তার, ইকরা জান্নাত মীম, ছোট ছে’লে আব্দুল মুমিন।