• ২২শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ১৪ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

নৌকায় চড়ে চেয়ারম্যান হলেন সেই ‘সাবেক শিবির নেতা’ ইমাদ

bilatbanglanews.com
প্রকাশিত নভেম্বর ১১, ২০২১
নৌকায় চড়ে চেয়ারম্যান হলেন সেই ‘সাবেক শিবির নেতা’ ইমাদ

মো. রেজাউল হক ডালিম:আওয়ামী লীগ তাঁকে নৌকার প্রার্থী ঘোষণার পর সিলেটজুড়ে তোলপাড় শুরু হয়েছিলো। তাঁকে সাবেক শিবির নেতা হিসেবে প্রমাণ করতে সংবাদ সম্মেলন করে আওয়ামী লীগের একটি পক্ষ। কিন্তু তাঁর প্রার্থীতা বাতিল করেনি আওয়ামী লীগ। শেষ পর্যন্ত নৌকায় চড়ে ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন সেই ‘সাবেক শিবির নেতা’ ইকবাল হোসেন ইমাদ।

চলমান ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে বৃহস্পতিবার (১১ অক্টোবর) সিলেট বিভাগের চার জেলার ৪৪টি ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত সিলেট জেলার সদর উপজেলার ৪টি, বালাগঞ্জের ৬টি, কোম্পানীগঞ্জের ৫টি, সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার ১০টি, দোয়ারাবাজারের ৯টি, হবিগঞ্জ জেলার আজমিরীগঞ্জের ৫টি এবং মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার ৫টি ইউনিয়নে অনুষ্ঠিত হয় টানা ভোটগ্রহণ।

এর মধ্যে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ রণিখাই ইউনিয়নে ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে বিজয়ী হয়েছেন আলোচিত ইমাদ। তিনি ৩ হাজার ৭২২ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মন্তাজ আলী পেয়েছেন ২৫০০ ভোট।

দ্বিতীয় ধাপে ইউনিয়ন নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর সিলেটের ইউনিয়নগুলোতে প্রার্থী চূড়ান্ত করে আওয়ামী লীগ। নাম ঘোষণার পরপরই কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ রণিখাই ইউনিয়নের নৌকার প্রার্থী নিয়ে সিলেটজুড়ে শুরু হয় আলোচনা-সমালোচনার ঝড়। এ ইউনিয়নে কোম্পানীগঞ্জ থানা ছাত্র শিবিরের সাবেক তুখোড় নেতা ইকবাল হোসেন ইমাদকে নৌকার প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়। এ ক্ষেত্রে ইউনিয়ন, উপজেলা ও জেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দকে ইকবাল ‘ম্যানেজ’ করে নৌকা প্রতীক বাগিয়ে নেন বলে দলটির বিভিন্ন পর্যায়ের স্থানীয় নেতৃবৃন্দ অভিযোগ তুলেন।
এ বিষয়ে গত ১৪ অক্টোবর সিলেট জেলা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে বিস্তর প্রমাণ উপস্থাপন করলেন দক্ষিণ রণিখাই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতৃবৃন্দ।

তবে অবশেষে সকল আলোচনা-সমালোচনাকে পেছনে ফেলে বৃহস্পতিবার নৌকা প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন ইমাদ।(সিলেটভিউ)