• ১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ১১ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

প্রতারণার মাধ্যমে হাতিয়ে নেয়া টাকা উদ্ধারের মেশিন রাসেল’র আরেকটি সফলতা

bilatbanglanews.com
প্রকাশিত সেপ্টেম্বর ২২, ২০২১
প্রতারণার মাধ্যমে হাতিয়ে নেয়া টাকা উদ্ধারের মেশিন রাসেল’র আরেকটি সফলতা

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিকাশে প্রতারণা করে হাতিয়ে নেয়া টাকা উদ্ধার করলেন ছাতক থানার উপ-পরিদর্শক আসাদুজ্জামান রাসেল। উদ্ধারকৃত টাকা ছাতক ডিগ্রী কলেজের ছাত্রীর হাতে তুলেন দিলেন থানার ওসি নাজিম উদ্দিন।

বিকাশের একাউন্ট হ্যাক অথবা যে কোনো উপায়ে প্রতারণার মাধ্যমে হাতিয়ে নেয়া টাকা উদ্ধারে যেন রাসেল একটি মেশিন! তার এমন কৃতিত্বে খুশি থানার ওসি থেকে শুরু করে প্রতিটি পুলিশ সদস্য। এ সেবায় ভুক্তভোগিরাও সন্তুষ্ট। তিনিও হচ্ছেন সব মানুষের কাছে প্রশংসিত।

প্রায় প্রতিদিনই উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বিকাশ একাউন্ট থেকে নানা পন্থায় টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে প্রতারক চক্র। হারানো বা প্রতারিত হয়ে মানুষ থানায় আসে। আশ্রয় নেয় টাকা উদ্ধারের মেশিন খ্যাত থানার উপ-পরিদর্শক আসাদুজ্জান রাসেলের কাছে। অভিযোগ পেয়ে তিনি তার কৌশলী কার্যক্রম শুরু করেন। প্রায় প্রতিটি অভিযানে আসে তার সফলতা। উদ্ধারের পর থানার ওসির মাধ্যমে ভুক্তভোগিদের ডেকে এনে দেয়া হয় টাকা। টাকা হাতে পেয়ে সীমাহীন খুশি। অনেকেই আবেগঘন পোস্টও করেন ফেসবুকে। এভাবেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এখন বিকাশের টাকা উদ্ধারের মেশিন তিনি।

শুরুটা হয়েছিলো ২৩ অক্টোবর উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা সৌদি আরব প্রবাসী সুনু মিয়ার ২০হাজার টাকা উদ্ধারের মাধ্যমে। সেই থেকে উপজেলার যে কোনো জায়গায় কেউ প্রতারিত হয়ে টাকা খোয়ালে ছুটছেন থানায়। পর্যায়ক্রমে সফল হচ্ছেন।

সর্বশেষ সোমবার (২১ সেপ্টেম্বর) ছাতক সদর ইউনিয়নের ব্রাক্ষনগাওঁ গ্রামের ফয়জুল ইসলামের কন্যা, কলেজ ছাত্রী রেহেনা বেগমের ২০ হাজার টাকা তিনি উদ্ধার করেন। তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে উদ্ধারকৃত টাকা ভুক্তভোগীর হাতে তুলে দেন থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাজিম উদ্দীন ও উপ-পরিদর্শক আসাদুজ্জামান রাসেল।

ভুক্তভোগী রেহেনা বেগম জানান, ভাবতেই পারিনি টাকাগুলো আবার ফেরত পাবো। টাকা হাতিয়ে নেওয়ায় অনেকটা বিচলিত হয়ে পড়েছিলাম। অবশেষে পুলিশ জনগণের বন্ধু তা আবার প্রমাণ হলো। পুলিশের কাজের প্রতি বিশ্বাস আরও বহুগুন বেড়েছে।

এসআই আসাদুজ্জামান রাসেল বলেন, উর্ধতন কর্মকর্তাসহ সকল সহকর্মীদের আন্তরিক সহযোগিতার কারণে টাকা উদ্ধারে বারবার সফল হচ্ছি। তিনি সকল মানুষের উদ্দেশ্যে বলেন, একটু সচেতন হলে হ্যাকাররা ধোঁকা দিয়ে টাকা হাতিয়ে নেয়া সম্ভব হবে না।

এ ব্যাপারে ছাতক থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাজিম উদ্দিন জানান, আইনশৃঙ্খলা রক্ষার মাধ্যমে মানুষের নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করাই পুলিশের কাজ। সকল কাজই গুরুত্বপূর্ণ। তবে এসআই আসাদুজ্জামান রাসেল ইদানীং এই সমস্যাগুলো দ্রুত সময়ে সমাধান করতে সক্ষম হচ্ছে। এতে এ ডিপার্টমেন্টসহ উপজেলার ভূক্তভোগিরা খুশি।