• ১৮ই মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ১০ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

ছাতকে খাবারের সাথে নেশাদ্রব্য মিশিয়ে অজ্ঞান করে বাসায় দুর্ধর্ষ চুরি

bilatbanglanews.com
প্রকাশিত সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২১
ছাতকে খাবারের সাথে নেশাদ্রব্য মিশিয়ে অজ্ঞান করে বাসায় দুর্ধর্ষ চুরি

বিবিএন ডেস্ক: ছাতকে কৌশলে খাবারের সাথে নেশাদ্রব্য মিশিয়ে দিয়ে ঘরের সবাইকে অজ্ঞান করে একটি বাসায় দুর্ধর্ষ চুরির ঘটনা ঘটেছে। বুধবার রাতে ছাতক পৌর শহরের নোয়ারাই মহল্লায় এ চুরির ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নোয়ারাই মহল্লার লালু শাহ (৬০)’র বাসায় রান্নাঘরে জানালার গ্রিল কেটে চোরেরা প্রবেশ করে বাসা থেকে নগদ ৫ লক্ষ টাকা, স্বর্ণালংকার ও মালামাল চুরি করে নিয়ে যায়। ষ্টীলের আলমিরা ভেঙ্গে টাকা ও স্বর্ণালংকার নিয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, রান্নাঘরের জানালা দিয়ে সন্ধ্যায় খাবারের সাথে নেশাদ্রব্য মিশিয়ে দেয় চোরচক্র। রাতে ভাত খাওয়ার পর ঘরের দুই শিশু ছাড়া একে-একে সবাই অজ্ঞান হয়ে পড়েন। দুই শিশু রাতে ঘরের খাবার খায়নি। এ সুযোগে গভীর রাতে চোরেরা জানালার গ্রিল কেটে বাসায় প্রবেশ করে নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার ও মালামাল চুরি করে নিয়ে যায়।

সকালে বাসার লোকজন ঘুম থেকে জেগে না উঠলে পাশের বাসার লোকজন এসে দেখেন বাসার সকল দরজা খোলা। রুমে-রুমে অচেতন হয়ে পড়ে রয়েছেন মৃত আব্দুল হেকিমের পুত্র লালু শাহ, তার স্ত্রী সাজিয়া বেগম, পুত্র শাকিল আহমদ ও সাহেল আহমদ। বিষয়টি দেখে স্থানীয়রা থানা-পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। অচেতন অবস্থায় লালু শাহ, শাকিল আহমদ, সাহেল আহমদ ও সাজিয়া বেগমকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। লালু শাহ’র ভাই পাশের বাসার বাসিন্দা মঙ্গল মিয়া জানান, বাসা থেকে প্রায় ৫ লক্ষাধিক টাকা, স্বর্ণালংকার ও মালামাল চুরি হয়েছে। ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ লালু শাহ ও তার পরিবারের লোকজনের জ্ঞান না ফেরা পর্যন্ত সঠিকভাবে বলা যাচ্ছে না।

ছাতক থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ নাজিম উদ্দিন, ওই বাসার লোকজনকে অজ্ঞান করে দুর্ধর্ষ চুরির ঘটনা স্বীকার করে জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে তদন্তের মাধ্যমে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে। এদিকে নোয়ারাই মহল্লার আখলুছ মিয়ার পুত্র কবির মিয়ার বাসার ছাদে থাকা পানির ট্যাংকিতে কে বা কারা কেমিক্যাল মিশ্রণ করে দিয়েছে। ছাদের পাশের একটি গাছে উঠে পানির ট্যাংকিতে কারা কেমিক্যালজাতীয় কিছু মিশিয়ে দিয়ে যায়। ছাতক থানার এসআই আনোয়ার হোসেন কেমিক্যালের ওই খালি বোতলটি ছাদের উপর থেকে উদ্ধার করেছেন।