• ১৫ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ২রা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ৬ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

ঢাকার মগবাজারে ভয়াবহ বিস্ফোরণে নিহত বেড়ে ৬,দগ্ধ অর্ধশতাধিক

bilatbanglanews.com
প্রকাশিত জুন ২৭, ২০২১
ঢাকার মগবাজারে ভয়াবহ বিস্ফোরণে নিহত বেড়ে ৬,দগ্ধ অর্ধশতাধিক

বিবিএন ডেস্ক: রাজধানীর মগবাজারে বিকট শব্দে বিস্ফোরণের ঘটনায় তিনজন নিহত ও অর্ধশতাধিক ব্যক্তি আহত ও দগ্ধ হয়েছে। আহতদের শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ইনস্টিটিউটসহ আশপাশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঢামেকের জরুরি বিভাগেই নেয়া হয়েছে ৩২ জনকে। তাদের মধ্যে ১০ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে মগবাজার ওয়্যারলেস এলাকায় এ বিস্ফোরণ হয়। তবে বিস্ফোরণটি কিভাবে হয়েছে এ বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

রমনা বিভাগের পুলিশ উপ-কমিশনার মো: সাজ্জাদুর রহমান বিস্ফোরণ ও তিনজন নিহত হওয়ার তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তবে তাৎক্ষণিকভাবে বিস্তারিত জানাতে পারেননি।

প্রত্যক্ষদর্শী এক পথচারী বলেন, ঘটনাস্থলের কাছে একটি ভবনে নিচে তিনি দাঁড়িয়ে ছিলেন। এ সময় বিকট শব্দ শুনতে পান তিনি। তার বর্ণনা অনুযায়ী, যে ভবনের নিচে তিনি ছিলেন, ওই ভবনের কিছু পলেস্তারা ধসে বৈদ্যুতিক ট্রান্সফরমারের ওপর পড়ে। এরপর ট্রান্সফর্মার বিস্ফোরণ হয়ে আগুন ধরে যায়। মুহূর্তেই এই আগুন মগবাজার ফ্লাইওভাড়ের ওপরে ও নিচে যাত্রীবাহী বাসে ছড়িয়ে পড়ে। এতে হতাহতের ঘটনা ঘটে।

আহত এক বাসযাত্রী বলেন, বাসটি মগবাজার ফ্লাইওভারের নিচে পৌঁছালে ফ্লাইওভারের ওপরে একটি বাসে আগুন জ্বলতে দেখেন। ওই বাস থেকে চূর্ণবিচূর্ণ কাচ ও আগুনের ফুলকি নিচে পড়তে থাকে। এরপর তিনি অচেতন হয়ে পড়েন। চেতনা ফিরলে দেখেন তিনি হাসপাতালের বিছানায়।

এ বিস্ফোরণে আহত ও দগ্ধদের ঢাকা কমিউনিটি ক্লিনিক, আদ্ব-দীন হাসপাতাল, শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউট ও ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আবাসিক সার্জন এস এম আইয়ুব হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, মগবাজারের ঘটনায় বার্ন ইউনিটে ১০ জনকে ভর্তি করা হয়েছে। জরুরি বিভাগে আরো অনেক রোগী আসছে।

নিহত দু’জনের নাম-পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে আশঙ্কাজনক ১০ জন হলেন রাসেল (২৪), জাকির হোসেন (৪০), স্বপন (২২), নয়ন (৩২), মোতালেব (৪০), আবুল কালাম (৩৫), মো. পইমল হোসেন (৪০), মোস্তাফিজ (৪৫), নবী (২৮) ও আজাদ (৩৫)।

এর আগে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সদরদফতরের কন্ট্রোল রুমের ডিউটি অফিসার এরশাদ হোসেন বলেন, একটি এসি বিস্ফোরণ হওয়ার সংবাদ পেয়েছি। কেউ কেউ আবার ফোন করে বলেছে গাড়ির সিলিন্ডার বিস্ফোরণ। ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিসের নয়টি ইউনিট পাঠানো হয়েছে। তবে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিসের ১৩টি ইউনিট কাজ করছে।

রমনা থানার ডিউটি অফিসার এসআই আবুল খায়ের বলেন, সেখানে ট্রান্সমিটার বিস্ফোরণ হয়েছে বলে শুনেছি। এখনো নিশ্চিত হতে পারছি না। পুলিশ বিস্ফোরণের কারণ জানার চেষ্টা করছে।

(জনমত)