• ১৫ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ২রা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ৬ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

ছাতক থানায় হামলা: গ্রেপ্তার আতঙ্কে পুরুষশূন্য ছাতকের কয়েকটি গ্রাম

bilatbanglanews.com
প্রকাশিত এপ্রিল ৯, ২০২১
ছাতক থানায় হামলা: গ্রেপ্তার আতঙ্কে পুরুষশূন্য ছাতকের কয়েকটি গ্রাম

 

ছাতক প্রতিনিধি::সুনামগঞ্জের ছাতক থানায় হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা দায়েরের পর গ্রেপ্তার আতঙ্কে উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের গণেশপুর গ্রাম এখন পুরুষশূন্য। ঘটনায় জড়িত অনেকেই আত্মগোপনে চলে গেছেন।

শুক্রবার এসব এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, গনেশপুর গ্রাম ছাড়াও পৌরসভার বাড়বাড়ী, মন্ডলীভোগ, চরেরবন্দ, বউলা ও তাতিকোনা এলাকায় সুনশান নীরবতা। এসব এলাকার অনেক মানুষকে পুলিশের ওপর হামলার মামলায় আসমি করা হয়েছে। প্রতিদিনই পুলিশ আসামি গ্রেপ্তারে সাঁড়াশি অভিযান চালাচ্ছে।

এব্যাপারে ইসলাম পুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান এডভোকেট সুফি আলম সোহেল বলেন, আমি আসামী না থাকার পরও আমার বাড়ি ঘরে পুলিশের তল্লাশি করছে। গনেশপুর ও ছড়ারপারসহ আশে পাশের বিভিন্ন গ্রামে তল্লাশি কেন?সবার বিবেকের কাছে প্রশ্ন রেখে গেলাম।বিচারের ভার জনতার কাছে দিলাম।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক গ্রামের কয়েকজন বলেন, মামলায় এজহারভুক্ত ৯৫ জনকে ছাড়াও অজ্ঞাত আরও ৮শ-৯শ জনকে আসামি করা হয়েছে। যার ফলে যে কাউকেই পুলিশ গ্রেপ্তার করার সুযোগ রয়েছে বলেই অনেকেই আতঙ্কে রয়েছেন।

তবে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পরিদর্শক মিজানুর রহমান বলেন, মূলত এ ঘটনায় থানার সিসি ক্যামেরা ও সংগৃহীত ভিডিও ফুটেজ দেখেই মামলার তদন্ত চলছে। নীরিহ কাউকে হয়রানি করা হবে না। মামলার আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

উল্লেখ্য, নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে হেফাজতে ইসলামের নেতা মাওলানা মামুনুল হককে আটককে কেন্দ্র করে গত শনিবার রাতে ছাতক থানায় হামলা ও ভাংচুর চালায় হেফাজত-বিএনপি ও জামায়াতের লোকজন। এসময় পুলিশসহ অন্তত ২৫ জন আহত হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ টিয়ারসেল ও রাবার বুলেট ছুঁড়ে। এ ঘটনায় পুলিশ প্রায় এক হাজার লোকজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করে।