• ১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ৭ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

ইংল্যান্ডের ব্রিস্টলে সহিংস বিক্ষোভে মারাত্মক আহত ২০ পুলিশ, গাড়িতে আগুন

bilatbanglanews.com
প্রকাশিত মার্চ ২৪, ২০২১
ইংল্যান্ডের ব্রিস্টলে সহিংস বিক্ষোভে মারাত্মক আহত ২০ পুলিশ, গাড়িতে আগুন

বিবিএন নিউজ ডেস্ক: ব্রিটেনের ব্রিস্টলে শান্তিপূর্ণ এক প্রতিবাদ বিক্ষোভ সহিংস হয়ে উঠার পর এতে ২০ পুলিশ সদস্য মারাত্মক আহত হয়েছেন। পুলিশের কমপক্ষে ১২টি গাড়িতে অগ্নিসংযোগ অথবা ভাঙচুর করা হয়েছে। পুলিশকে উদ্ধৃত করে এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স ও অনলাইন ডেইলি মেইল।

ব্রিস্টল শহরে দেশটির পুলিশের ক্ষমতা বাড়ানোর বিষয়ে বিতর্কিত এক খসড়া আইনের প্রতিবাদে বিক্ষোভে বাধা দেয়ায় পুলিশের ওপর হামলা করেছে বিক্ষোভকারীরা। পুলিশের নিষেধ সত্ত্বেও হাজার হাজার লোকের অংশ গ্রহণে দেশটির দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলীয় শহরটিতে ‘কিল দ্য বিল‘ বিক্ষোভ অনুষ্ঠানের পর রোববার রাতে এই সহিংস ঘটনা ঘটে।

এতে বলা হয়, পার্লামেন্টের মাধ্যমে সরকার একটি বিল এনেছে। সেই বিলে রাজপথের বিক্ষোভকে বিধিনিষেধের জালে আটকে দিতে পুলিশকে নতুন করে ক্ষমতা দেয়ার কথা বলা হয়েছে। করোনা ভাইরাসের বিধিনিষেধকে উপেক্ষা করে প্রস্তাবিত ওই বিলের বিরুদ্ধে কয়েক হাজার মানুষ শহরের কেন্দ্রস্থলে জড়ো হয়। অ্যাভন এবং সমারসেট পুলিশ বলেছে, বিক্ষোভ শুরু হয়েছিল শান্তিপূর্ণভাবে। কিন্তু পরে ছোট্ট একটি গ্রুপের বিশৃংখলায় তা সহিংস হয়ে ওঠে।

এ ঘটনায় বৃটিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রীতি প্যাটেল টুইটারে বলেছেন, ব্রিস্টলের এ ঘটনা অগ্রহণযোগ্য। অল্প কিছু মানুষের দস্যুতা এবং বিশৃংখলা কখনোই সহ্য করা হবে না। তিনি আরো বলেন, পুলিশ কর্মকর্তারা আমাদের সবাইকে নিরাপদ রাখতে নিজেদেরকে ক্ষতির মুখে ঠেলে দেন। যেসব পুলিশ আহত হয়েছেন তাদের সবার প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ করেন প্রীতি প্যাটেল। আহত দুই পুলিশ সদস্যকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এর মধ্যে একজনের বাহু এবং অন্যজনের বুকের পাঁজর ভেঙে গেছে। অন্য পুলিশ সদস্যরা সহিংসতা এবং মৌলিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। শহরের কেন্দ্রস্থলে একটি পুলিশ স্টেশনের বাইরে ভাংচুর করা হয়েছে।

উদ্ভূত পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে পার্শ্ববর্তী আইন শৃংখলা রক্ষাকারীদের সহায়তা চায় অ্যাভন ও সমারসেট পুলিশ। অ্যাভন ও সমারসেট পুলিশের প্রধান সুপারিনটেনডেন্ট উইল হোয়াইট বলেছেন, যারা এই অপরাধের সঙ্গে জড়িত তাদের সবাইকে খুঁজে বের করা হবে। মুখোমুখি করা হবে বিচারের। এমন আচরণের পরিণতি ভোগ করতে হবে তাদেরকে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের একজন ফটোগ্রাফার ঘটনাস্থলে দেখতে পান যে, পুলিশ অফিসারদের লক্ষ্য করে ফায়ারওয়ার্ক শুরু করে কিছু বিক্ষোভকারী। তারা একটি পুলিশ ভ্যান ধাক্কা দিয়ে সরানোর চেষ্টা করে। একটি পুলিশ স্টেশনের বাইরে তারা স্প্রে করে দেয়াল লিখন করে। এ সময় কিছু পুলিশ লাঠিচার্চ করে বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করার চেষ্টা করেন। বিক্ষুব্ধ লোকজনের হাতে ছিল ‘কিল দ্য বিল’; ‘দ্য ডে ডেমোক্রেসি বিকেম ডিকটেটরশিপ’ এবং ‘উই ক্যান্ট বি সাইলেন্সড দ্যাট ইজি’ লেখা ব্যানার দেখা যায়।

পুলিশ বিক্ষোভকারীদের সরাসরি অংশ নিয়ে বিক্ষোভের বদলে ভার্চুয়াল বিক্ষোভ আয়োজনের আহ্বান জানিয়েছিল। এর আগে ব্রিটিশ পুলিশের ক্ষমতা বাড়ানোর খসড়া আইনের প্রতিবাদে ব্রিস্টলে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভে হাজার হাজার লোক অংশ নেন। মাস্ক পরে বিক্ষোভে অংশ নেয়া প্রতিবাদকারীরা ‘ব্রিটিশ পুলিশি রাষ্ট্রকে না বলুন‘, ‘প্রতিবাদের স্বাধীনতা গণতন্ত্রের মৌলিক বিষয়‘ ও ‘কিল দ্যা বিল‘ লেখা প্ল্যাকার্ড বহন করেন।