• ১৬ই অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৩১শে আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ১০ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

ছাতকে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ অসহায় তিন পরিবারকে লতিফি হ্যান্ডসের গৃহ উপহার

bilatbanglanews.com
প্রকাশিত ডিসেম্বর ১৮, ২০২০
ছাতকে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ অসহায় তিন পরিবারকে লতিফি হ্যান্ডসের গৃহ উপহার

 

রেজাউল করিম রেজা, ছাতক :সুনামগঞ্জের ছাতকে একদিনে অসহায় তিন পরিবারকে গৃহ নির্মাণ করে দিয়েছে ‘লতিফি হ্যান্ডস’ নামের একটি মানবিক সংস্থা। বৃহস্পতিবার সকালে নির্মাণ কাজ শেষে তিন পরিবারের কাছে তাদের গৃহগুলো বুঝিয়ে দেয়া হয়। এ মানবিক সংস্থাটি বৃহত্তর সিলেট জুড়ে এক অনন্য দৃষ্ঠান্ত স্থাপন করে যাচ্ছে। প্রচারবিমুখ এ সংস্থার কার্যক্রমে উপকারভোগিরা সন্তোষ্ট। সেবা পেয়ে যাচ্ছে সমাজের গরিব-অসহায়, এতিম, হতদরিদ্র হাজার হাজার পরিবার। যার ব্যবস্থাপনায় রয়েছেন শামছুল উলামা আল্লামা আবদুল লতিফ চৌধুরী ছাহেব কিবলা ফুলতলী (রহ:) এঁর বড় ছাহেব জাদা আল্লামা ইমাদ উদ্দিন চৌধুরী ফুলতলী।


জানা যায়, উপজেলার দক্ষিণ খুরমা ইউনিয়নের চেচান বাউর গ্রামের মৃত আছদ্দর আলীর ছেলে সিরাজ উদ্দিন, ফয়জুল ইসলাম ও শামসুদ্দিনের তিনিটি টিনসেডের বসতঘর গেল ১০ ডিসেম্বর সন্ধ্যার আগে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে মুহুর্তের মধ্যে পুড়ে ছাঁই হয়ে যায়। পরিবারের সদস্যরা পড়নের কাপড় ছাড়া ঘর থেকে কিছুই উদ্ধার করতে পারেন নি। নগদ টাকা, দলিলাদি, মূল্যবান কাগজপত্র, ধান-চালসহ ২০ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয় এ তিন কৃষক পরিবারের। অগ্নিকান্ডে তাদের জমানো সম্পদ নিমিষেই শেষ হয়ে যায়। শীতের মধ্যে পরিবারের সদস্যরা ক’য়দিন খোলা আকাশের নীচে সীমাহীন দু:খ কষ্টে বসবাস করে আসছিলেন। তাৎক্ষনিক উপজেলা প্রশাসন ও ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী ও শীত বস্ত্র বিতরণ করা হলেও বসবাসের জন্য তাদের গৃহ নির্মাণে এগিয়ে আসেন নি কেউ। খবর পেয়ে তিনটি পরিবারের ২৩জন সদস্যদের জন্য খাদ্য সামগ্রী, শীত বস্ত্র, নতূন কাপড়, জুতা, আসবাবপত্র ও নিত্য প্রয়োজনীয় মালামাল এবং নগদ অর্থ নিয়ে ১৫ ডিসেম্বর দুপুরে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলোকে দেখতে ছুটে আসেন শামছুল উলামা আল্লামা আবদুল লতিফ চৌধুরী ছাহেব কিবলা ফুলতলী (রহ:) এঁর সুযোগ্য বড় ছাহেব জাদা, লতিফি হ্যান্ডস এর ব্যাপস্থাপক আল্লামা ইমাদ উদ্দিন চৌধুরী ফুলতলী। এসময় তিনি লতিফি হ্যান্ডস নামের সংস্থার মাধ্যমে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলোকে একত্রে তিনটি গৃহ নির্মাণের কথা ব্যক্ত করেন। এসময় সাথে ছিলেন তাঁরই সুযোগ্য সন্তান, লতিফি হ্যান্ডস এর সাধারণ সম্পাদক মাওলানা গুফরান আহমদ চৌধুরী।
কথা অনুযায়ী পর দিন বুধবার (১৬ ডিসেম্বর) সকালে গৃহ নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে পাঠানো হয় মিস্ত্রিদের। শুরু হয় গৃহ নির্মাণ কাজ। ১২জন মিস্ত্রি ও স্বেচ্ছাসেবীদের শ্রমের বিনিময়ে টানা ১৪ ঘন্টা শেষে নির্মিত হয় তিনটি গৃহ। বৃহস্পতিবার সকালে ৮০ ফুট লম্বা টিনসেডের গৃহ নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করে বুঝিয়ে দেয়া হয় সিরাজ উদ্দিন, ফয়জুল ইসলাম ও শামসুদ্দিনকে। এতে অসহায় এসব পরিবারের সদস্যদের মাথা রাখার জায়গা হয়। ফুলতলী পীর সাহেব কর্তৃক একদিনে অসহায়দেরকে গৃহ নির্মাণ করে দিয়েছেন এমন সংবাদে এলাকার লোকজন গৃহটি দেখতে ভিড় করছে ওই বাড়িতে। সূত্রে জানা গেছে, আল্লামা আবদুল লতিফ চৌধুরী ফুলতলী (রহ:) সারা জীবন পবিত্র কোরআন ও হাদিসের আলো ছড়িয়ে দেয়ার পাশাপাশি মানুষের কল্যাণে কাজ করে গেছেন। পিতার দেখানো পথ ধরে মানবসেবায় প্রথম থেকেইে নিজেকে বিলিয়ে দিয়ে যাচ্ছেন তাঁরই বড় ছাহেব জাদা, লতিফি হ্যান্ডেস এর ব্যাপস্থাপক, বর্তমান পীর আল্লামা ইমাদ উদ্দিন চৌধুরী ফুলতলী। এ সংস্থার মাধ্যমে অসহায় মানুষের বসতঘর, মসজিদ নির্মাণ, টিউবওয়েল স্থাপন, শীতবস্ত্র ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ, খতনা ক্যাম্প, শ্রমিকদের বিনামূল্যে রিকশা ও ঠেলাগাড়ি বিতরণ, ফ্রি চক্ষু চিকিৎসা ক্যাম্প, প্রতিবন্ধি ভাতা ইত্যাদি কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে। এদিকে, একদিনের মধ্যে নতূন গৃহ পেয়ে ২৩ সদস্যের পরিবারগুলোর সদস্যরা দারুন খুশি। তারা বলেছেন, ফুলতলী ছাহেব গৃহ নির্মাণ করে খাদ্য সামগ্রী, শীতবস্ত্র, নতূন জামা-কাপড়, ৬টি চৌকি, আসবাবপত্র ও নিত্যপ্রয়োজনীয় মালামাল দিয়েছেন। এছাড়াও গ্রামের লোকজন তাদেরকে বিভিন্ন ভাবে সহযোগিতা করে যাচ্ছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •