• ১৬ই অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৩১শে আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ১০ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

ইংল্যান্ডে যে কোন সময় তৃতীয় লকডাউন:নর্দান আয়্যার্ল্যান্ড, ওয়েল্সে লকডাউন ঘোষণা

bilatbanglanews.com
প্রকাশিত ডিসেম্বর ১৮, ২০২০
ইংল্যান্ডে যে কোন সময় তৃতীয় লকডাউন:নর্দান আয়্যার্ল্যান্ড, ওয়েল্সে লকডাউন ঘোষণা

মো: রেজাউল করিম মৃধা: যেভাবে প্রতিদিন ব্রিটেন করোনাভাইরস আক্রান্ত এবং মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে । করোনাভাইরস নিয়ন্ত্রনে করতে লক ডাউনের কোন বিকল্প নেই এমনই মন্তব্য করেছেন গবেষকরা। আর এ কারনে যে কোন সময় তৃতীয় জাতীয় লক ডাউন হতে পারে।

প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেছেন , তিনি ব্রিটেনে আরও একটি জাতীয় লকডাউন এড়াতে চান। তবে তিনি স্বীকার করেছেন যে সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলিতে কোভিডের ঘটনা যে ভাবে বেড়েছে
তাতে সবাইকে আরো সচেতনামূলক ভাবে কাজ করতে হবে। সবার সম্মিলিত ভাবে কাজ করলে তৃতীয় লক ডাউন না দেওয়া হতে পারে তিনি চান না তৃতীয় জাতীয় লক ডাউন দেওয়া হোক।তবে জনসাধারনের জীবন রক্ষার দায়িত্ব ও সরকারের”।

ইংল্যান্ড ছাড়া অন্যান্য দেশে ইতিমধ্যেই জাতীয় তৃতীয় লক ডাউন ঘোষনা করেছে।১/ ২৬ ডিসেম্বর ২০২০ থেকে নর্দান আয়ারল্যান্ডে শক্তিশালী ভাবে নতুন ছয় সপ্তাহের লকডাউন ঘোষণা কর হয়েছে।২/ ওয়েলসে ২৮ই ডিসেম্বর ২০২০ থেকে লকডাউন শুরু।৩/ স্কটিশ সরকার মঙ্গলবার পর্যালোচনার পর স্কটল্যান্ড নতুন করে জাতীয় লক ডাউন ঘোষনা করতে পারে। তবে এখনো চুরান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহন করেনি।

স্বাস্থ্য কর্তারা সতর্ক করে দিয়েছেন যে এনএইচএস ইতিমধ্যে উল্লেখযোগ্য চাপের মধ্যে রয়েছে।
রয়্যাল কলেজ অফ ইমার্জেন্সি মেডিসিনের সভাপতি ডাঃ ক্যাথরিন হেন্ডারসন বলেছেন, ভাইরাসটির আটকানোর জন্য ইংল্যান্ড এবং স্কটল্যান্ডকে “যা কিছু লাগবে” করার দরকার ছিল, যদিও এর অর্থ “সম্পূর্ণ লকডাউন” ছিল।

এদিকে, ইংল্যান্ডের প্রধান শিক্ষকরা বলেছেন যে জানুয়ারিতে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রত্যাবর্তন স্কুলগুলিকে কোভিড টেস্টিং স্কিম স্থাপনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।এই সরকারের ঘোষণায় তারা “ভেঙ্গে” পড়েছেন।

তারা বলেছে যে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিতে তাদের পক্ষে এই পদক্ষেপটি খুব দেরিতে এসেছিল তবে বিদ্যালয়ের মন্ত্রী মিঃ গিব এই পরিকল্পনাটির পক্ষে সমর্থন জানিয়েছিলেন যে সরকার সব ধরনের সহায়তা দেবে।নতুন বছরে স্কুল কভিড-১৯ টেস্টিং স্কীম অব্যহত থাকবে।

বড় দিন উপলক্ষে ২৩শে ডিসেম্বর ২৭ ডিসেম্বর ২০২০ পর্যন্ত টিয়ার থ্রি কিছুটা শিথিল করা হবে। যাতে পরিবার পরিজনের সাথে দেখা করতে পারবেন। সর্বোচ্চ তিন পরিবার একত্রিত হতে পারবেন।টিয়ার থ্রি শিথিলের ফলে করোনাভাইরসের প্রকট আরো বেড়ে যেতে পারে বলে ধারনা করছেন গবেষকরা।

তবে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন মনে করেন বড় দিন সবাই আনন্দে সাথে উপভোগ করুক। সেই সাথে সবাইকে সতর্ক থাকার জন্য বিশেষ ভাবে স্মরন রাখতে বলেছেন। প্রধানমন্ত্রী তৃতীয় জাতীয় লক ডাউন এড়াতে চাচ্ছেন।(ওয়ান বাংলা)

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •