• ২৩শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ , ২২শে শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

সংশোধিত কাবিটা নীতিমালা ২০১৭ অনুযায়ী কাবিটা স্কিম প্রনয়ন ও বাস্তবায়ন সংক্রান্ত জেলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

bilatbanglanews.com
প্রকাশিত ডিসেম্বর ৩, ২০২০
সংশোধিত কাবিটা নীতিমালা ২০১৭ অনুযায়ী কাবিটা স্কিম প্রনয়ন ও বাস্তবায়ন সংক্রান্ত জেলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

লতিফুর রহমান রাজু সুনামগঞ্জ: আজ ৩  ডিসেম্বর বেলা ১২টায় সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে সংশোধিত কাবিটা নীতিমালা ২০১৭ অনুযায়ী কাবিটা স্কিম প্রন য়ন ও বাস্তবায়ন সংক্রান্ত জেলা কমিটির এক সভা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে সভাপতিত্ব করেন সুনামগঞ্জ জেলার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ । এ সময় পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ সাবিবুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শিক্ষা ও আই সিটি মোঃ জসীম উদ্দিন, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর উপ পরিচালক, সুনামগঞ্জ রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি লতিফুর রহমান রাজু, ইউএনও গণ, পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ সহকারী প্রকৌশলী গন , গণমাধ্যম কর্মী সহ অন্যান্য কর্মকর্তা কর্মচারী গণ উপস্থিত ছিলেন।
সভায় আগামী ২০ ডিসেম্বরেরমধ্যে পিআইসি গঠন করে ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে হাওর রক্ষা বাঁধ কাজ সম্পন্ন করতে সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা কামনা করা হয়। গণ শুনানি করে ব্যানার লাগিয়ে স্থানীয় কৃষক ও জন প্রতিনিধি, গণমাধ্যম কর্মীদের উপস্থিতিতে সুষ্ঠু ভাবে করার জন্য ইউএনও ও প্রকৌশলীদের কঠোর নির্দেশনা দেয়া হয়। কাজের শুরুতে যেন অর্থ বরাদ্দ ইউএনও দের কাছে দিয়ে দেয়া হয় সে ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট বিশেষ অনুরোধ করা হয়। সময় মতো অর্থ বরাদ্দ ও ছাড় দেয়া না হলে এ নিয়ে অনেক ঝামেলা ও ভূল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হয়।
এ বিষয়ে গত বছর বিভিন্ন প্রশ্ন দেখা দিয়েছিল। পানি উন্নয়ন বোর্ডের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাগণ যেন শত ভাগ যাচাই বাছাই করেন সে বিষয়ে ও দাবি জানানো হয়। এ বছর ৬২ কোটি ৫৪লক্ষ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে আড়াইশো কিলোমিটার প্রি ওয়ার্ক কাজ সম্পন্ন হয়েছে। প্রি ওয়ার্কের পাশাপাশি স্কিম নির্বাচন সহ অন্যান্য কাজ ও চলমান আছে। সম্ভাব্য পিআইসিদের প্রস্তুত থাকার জন্য ইউএনও ও প্রকৌশলী গন বলে দিতে বলা হয়। গত বছরের পিআইসিদের পাওনা বকেয়া ইতিমধ্যে ছাড় করে দেয়া হয়েছে আগামী ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে যেন সুষ্ঠ ভাবে বিতরণ করা হয় সে জন্য ইউএনও ও প্রকৌশলী দের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সার নিয়ে কোন অনিয়ম বরদাশত করা হবেনা বলে ও কঠোর হুঁশিয়ারি দেয়া হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •