• ১৭ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ৩রা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ১৪ই জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

আল্লামা সাঈদী কে নিয়ে পুত্রের আবেঘগন ষ্টেটাস, ফেইসবুকে ভাইরাল

bilatbanglanews.com
প্রকাশিত অক্টোবর ১৯, ২০২০
আল্লামা  সাঈদী কে নিয়ে পুত্রের আবেঘগন ষ্টেটাস, ফেইসবুকে ভাইরাল

বিব এন নিউজ ঢাকাঃ  মানবতা বিরোধী অপরাধে জেলে থাকা আল্লামা সাঈদীর পুত্রের করুন আর্থনাদে লেখা ফেইসবুক ষ্টেটাসটি মুহুর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে পড়ে। পাঠকের জন্য তা হুবহু তুলে ধরা হলো।

২২৫ দিন পার হয়ে গেলো অথচ দেখা হলো না …  !

আমার আব্বা .. !

প্রায় ৮ মাস হতে চললো আপনার সাথে আমার দেখা হয় না। ২০১০ সালের ২৯ জুন আপনি গ্রেফতার হওয়ার পর থেকে আজ অবধি এতো দীর্ঘ সময় আপনার সাথে সাক্ষাত না করে থাকিনি। মাঝে অবশ্য যখন “ককটেল আর পেট্রোল বোমা” বানানোর মহা অপরাধে (!) আমি কারাগারে ছিলাম তখন মাসাধিককাল সময় আপনার সাথে সাক্ষাত করা থেকে বঞ্চিত ছিলাম। তবে সেটাও তো এতো দীর্ঘ সময়ের জন্য ছিলনা।

আমি ভাবতেই পারিনা ..

আজ ২২৫ দিন পার হয়ে গেল অথচ আপনার সঙ্গে আমার দেখা হলো না। যতোবারই কারা কর্তৃপক্ষের কাছে সাক্ষাতের জন্য মৌখিক আবেদন করেছি, ততোবারই তারা জানিয়ে দিয়েছেন ‘উপরের নির্দেশ’ নেই। সরকার দেশের প্রায় সকল কারাগারের বন্দীদের তাদের স্বজনদের সাথে ফোনে কিছু সময় কথা বলার সুযোগ করে দিয়েছে। বন্দীরা তাদের স্বজনদের সাথে ২/৫ মিনিট কথা বলার সুযোগ পাচ্ছেন। কিন্তু আমাদেরকে ফোনে কথা বলার সে সুযোগ থেকেও বঞ্চিত করা হয়েছে। বহু অনুনয় বিনয় করেও সে সুযোগ দেয়া হয়নি। আমার এই কষ্টের কথা আামি কাকে বলবো?

আব্বা! আপনি জানেন চারিদিকে এখন করোনার আতংক। প্রতিদিন অসংখ্য অগণিত মানুষ করোনায় আক্রান্ত হচ্ছে। এ পর্যন্ত পৃথিবীতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪,০২,৮১,৭৪১ জন আর ১১,১৮,৩২৮ জন মানুষ মারা গেছেন। বাংলাদেশে আজকের দিন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৩,৮৮,৫৬৯ জন আর মারা গেছেন ৫,৬৬০ জন। লাশের মিছিল প্রতিদিন বেড়েই চলছে।

আমি জানি আব্বা! এসব ব্যাপারে আপনি নিজেকে নিয়ে কখনো ভাবেন না। ছোটবেলা থেকে আপনাকে যেভাবে চিনে আমি বড় হয়েছি তাতে আমি জানি, আপনি বরং নিজের কষ্টের চেয়েও অন্য মানুষের দুঃখ বা কষ্টে বেশি কষ্ট পান।

আপনার নিজের জন্য নিজের কোন দুঃশ্চিন্তা না থাকতে পারে, কিন্তু আব্বা! আমি যে আপনাকে নিয়ে বড়ো দুঃশ্চিন্তায় আছি। কষ্টে আছি। আমি কি করে ভুলে যাবো যে, আপনার বয়স এখন ৮১ বছর। আপনি গত ১০টি বছর ধরে কারাগারের অন্ধকার ছোট্ট একটি রুমে (রুমের সাইজ ১০ ফুট x ৮ ফুট হবে) মানবেতর জীবনযাপন করছেন। আপনাকে যে রুমে থাকতে দিয়েছে, সেখানে শোয়ার জন্য আপনাকে কোনো খাটও দেয়নি ওরা। আমি কি করে ভুলে যাবো, আপনি ফ্লোরে চাদর বিছিয়ে ঘুমান!!

আমি কি করে ভুলে যাবো যে, আপনি গত ৩৯ বছর যাবত ডায়াবেটিক রোগে আক্রান্ত। আপনার আছে হৃদরোগ। আপনার হার্টে পাঁচটি রিং বসানো। সাথে আছে আপনার উচ্চ রক্তচাপ,  আর্থাইটিস, ফ্রোজেন শোল্ডারসহ নানান জটিল রোগ। আমি তো এ কথাও জানি, বর্তমানে আপনি কারো সহযোগিতা ছাড়া একাকী হাঁটাচলা করতে পারেন না। এমনকি বিছানা থেকে উঠতেও আপনাকে কারো না করো সহযোগিতা নিতে হয়। আমি কি করে ভুলে যাবো, বয়স জনিত কারনে আপনি ক্রমেই দুর্বল হয়ে পড়ছেন। কি করে ভুলে যাবো, করোনার কারনে আপনি মারাত্নক রকম স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে আছেন। কীভাবে ভুলে যাবো?

আমার আব্বা!

আওয়ামী সরকার রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় অন্যায়ভাবে আপনাকে গ্রেফতার করার পর থেকে নিয়ে এ পর্যন্ত মহান আল্লাহ তায়ালার উপর ভরসা করে আমরা আমাদের সর্বোচ্চ সামর্থ দিয়ে আইনী লড়াই চালিয়েছিলাম। কিন্তু দুনিয়ার আদালত আমাদের প্রতি ন্যায় বিচার করেনি। বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে দেশ বিদেশের লক্ষ কোটি মানুষ বয়স, অসুস্থতা ও মানবিক বিবেচনায় পৃথিবীর অন্যান্য দেশের জাতীয় নেতাদের মতো সরকারের কাছে আপনারও মুক্তি দাবি করেছিলো। কিন্তু সরকার এখন পর্যন্ত কোটি মানুষের প্রানের এ দাবি পূরণে কোনো কার্যকর ভূমিকা গ্রহণ করেনি।

তবু আমরা হাল ছাড়িনি। সেই ২০১০ সাল থেকেই আমরা আপনাকে অন্যায়ভাবে গ্রেফতারের প্রতিবাদ আর মুক্তির দাবি করেই যাচ্ছি। আমাদের শরীরে যতক্ষন রক্ত প্রবাহিত হতে থাকবে আপনার মুক্তির এই ন্যায়সঙ্গত দাবি আমরা করতেই থাকবো। আমি জানি আপনি আপনাকে নিয়ে চিন্তিত নন, কিন্তু আমি যে আপনাকে নিয়ে চিন্তিত বাবা। কারন আপনাকে ছাড়া যে আমার এক মূহুর্তও চলেনা। বাবা ও বাবা! আপনিই যে আমার সব!

আল্লাহর নামে শপথ করে আমাদের সামনে আপনি বহুবার বলেছেন, ‘আপনার তকদীর নিয়ে আপনি মোটেও চিন্তিত নন।’ আপনি বলেছেন ‘আমার সেটাই হবে, যেটা মহান আল্লাহ কর্তৃক আমার জন্য নির্ধারিত আছে।’ আমি জানি আলহামদুলিল্লাহ আপনি কখনো কোন বিষয়েই হতাশা বা দুশ্চিন্তাগ্রস্থ নন। আপনি সর্বাবস্থায় আপনার মহান রব, মহান মালিকের উপরই ভরসা করেন। তবে সাক্ষাতে গেলে মাঝে মাঝে আপনি বলেন, ‘সরকারের এতো সব অপপ্রচারের কারনে মানুষ কি আমাকে ভুল বুঝেছে? মানুষ আমার বিরুদ্ধে সরকারের এসব মিথ্যা অভিযোগ কি বিশ্বাস করেছ?’ আব্বা! আপনার কষ্টটা এখানেই যে, মানুষ আপনাকে ভুল বুঝেছে কিনা। আমি জানি আব্বা এই ভাবনাই আপনাকে কষ্ট দেয়।

আব্বা!
শুধু সন্তান হিসেবে নয়, হাজারো মানুষের সাথে চলাফেরা করা একজন সাধারণ মানুষ হিসেবে বলছি- আপনি মোটেও চিন্তা করবেন না। আপনি মোটেও ভাববেন না যে, দুনিয়ার আদালতের অন্যায় কোনো রায়ের কারনে মানুষ আপনাকে ভুল বুঝেছে। অথবা আপনার বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলার কোনো ঘটনা মানুষ বিশ্বাস করেছে। মানুষ আপনাকে একটুও ভুল বোঝেনি। আপনার বিরুদ্ধে সরকার উত্থাপিত অভিযোগের একবিন্দু বিসর্গও মানুষ বিশ্বাস করেনা। বরং আপনি বিশ্বাস করুন আব্বা, পৃথিবীতে আপনার জন্য যতো মানুষ এখনো দোয়া করছে, রোজা রাখছে, ওমরাহ পালন করছে, জায়নামাজে চোখের পানি ফেলছে তা আর কারো তাকদীরে কোনদিন জুটেছে কিনা তা কারোরই জানা নেই।

আমার আব্বা … !

দুনিয়ার আদালতে করা আপিলে আমরা ন্যায় বিচার পাইনি তো কি হয়েছে, সর্বশ্রেষ্ঠ বিচারক সর্বশক্তিমান মহান আল্লাহ তা’য়ালার আদালতে করা আপিলে আমরা অবশ্যই ন্যায় বিচার পাবো ইনশাআল্লাহ।

সেদিন আপনার বিরুদ্ধে করা ষড়যন্ত্রের সকল কুশীলবরা আসামীর কাঠগড়ায় দাঁড়াবে। সেদিন ঐ আদালতে আপনার আবেদনটাই গৃহীত হবে আর তাদেরটা খারিজ হয়ে যাবে ইনশাআল্লাহ। আল্লাহ কাছে আপনি ন্যায় বিচারই পাবেন আর সেই বিচারের রায় হবে জান্নাত, ইনশাআল্লাহ। আর তাদের জন্য চিরস্থায়ী জাহান্নাম।

আমার প্রানপ্রিয় আব্বা … !

সবাই এটাই দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করে যে, যতো ষড়যন্ত্রই হোক, আপনি অবশ্যই কোরআনের ময়দানে ফিরে আসবেন ইনশাআল্লাহ। সেদিন বেশি দূরে নয়। সারা দুনিয়ার কোরআন প্রেমিকেরা প্রতীক্ষায় আছে আপনার আগমনের সেই সোনালী সকালের।

পিতৃস্নেহ বঞ্চিত অসহায় এক সন্তান ..

Masood Sayedee – মাসুদ সাঈদী

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •